‘পারমাণবিক কর্মসূচি পরিত্যাগ করবে না পিয়ংইয়ং’

পরিবর্তন ডেস্ক : উত্তর কোরিয়া সম্ভবত তাদের পারমাণবিক কর্মসূচি বর্জন করবে না, যদিও পিয়ংইয়ংয়ের সাম্প্রতিক কিছু কর্মকাণ্ড দেখে মনে হচ্ছিল তারা পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে সরে আসবে।

মঙ্গলবার মার্কিন জাতীয় গোয়েন্দা বিভাগের মহাপরিচালক ড্যান কোটস দেশটির সিনেট কমিটির সামনে এ তথ্য তুলে ধরেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, কোটসের এই মূল্যায়ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রত্যাশার বিপরীত। কারণ গত বছরের ১২ জুন সিঙ্গাপুরে উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে বৈঠকের পর থেকে তিনি (ট্রাম্প) আশা করছেন, পিয়ংইয়ং তার পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে সরে আসবে।

মার্কিন সিনেটের গোয়েন্দা কমিটিকে কোটস বলেন, উত্তর কোরিয়া তার ব্যাপক বিধ্বংসী অস্ত্রের উস্কানিমূলক কার্যক্রম স্থগিত করেছে, এক বছরের বেশি সময় ধরে পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়নি এবং পিয়ংইয়ং তার কিছু পারমাণবিক অস্ত্রের অবকাঠামো ধ্বংস করেছে। এমনকি দেশটির নেতা উন তার কিছু প্রচেষ্টার প্রদর্শনী অব্যাহত রেখেছেন যা দেখে হচ্ছে তিনি কোরীয় উপদ্বীপকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করতে চান।

‘কিন্তু এত কিছুর পরও, আমাদের মূল্যায়ন হচ্ছে, উত্তর কোরিয়া তার ব্যাপক বিধ্বংসী অস্ত্রের সক্ষমতা ধরে রাখবে এবং তার পারমাণবিক অস্ত্র ও তা উৎপাদনের সক্ষমতা বর্জন করবে না। কারণ দেশটির নেতা উন মনে করেন, পারমাণবিক অস্ত্র ছাড়া তার ক্ষমতায় টিকে থাকা কঠিন,’ বলেন কোটস।

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আমাদের মূল্যায়নের ব্যাপারে এ কারণেই এতো অটল যে, আমরা এমন কিছু কর্মকাণ্ড পর্যবেক্ষণ করেছি যা পূর্ণ নিরস্ত্রীকরণের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ।’

প্রসঙ্গত, মার্কিন ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা এমন সময় এই রিপোর্ট দিলেন যখন আগামী মাসের শেষ দিকে ট্রাম্প ও কিমের দ্বিতীয় বৈঠকে মিলিতি হওয়ার কথা রয়েছে।
আরপি

শেয়ার করুন এখান থেকে