দেশে দেশে বড়দিন উদযাপন

বিদেশ ডেস্ক : খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বড়দিন। খ্রিস্টধর্মের প্রবর্তক যিশুখ্রিষ্ট এ দিনে বেথলেহেমে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। খ্রিস্টধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, সৃষ্টিকর্তার মহিমা প্রচার এবং মানবজাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করতে প্রভু যিশুর এ ধরায় আগমন ঘটেছিল। বড়দিন, ক্রিসমাস বা ‘এক্সমাস’ যে নামেই ডাকা হোক না কেন ২৫ ডিসেম্বর মানেই খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের অনেক আনন্দ। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে সান্তা ক্লজের কাছ থেকে দারুণ দারুণ সব উপহার পাওয়া।খ্রিস্টান শিশুরা সান্তা ক্লজের কাছ থেকে উপহার পাওয়ার অপেক্ষায় থাকে সারা বছর। আর তাই শিশুদের কাছে সান্তা ক্লজ খুব জনপ্রিয়। বড়দিনের আগের রাতে তাই অনেকে সান্তার বাহারি পোশাক পরে ঘুরে বেড়ান। বড়দিনকে ঘিরে ইউরোপ-আমেরিকায় ছুটি শুরু হয়ে গেছে আগেই। বিশ্বের অনেক দেশেই দিনটিতে সরকারি ছুটি থাকে। ২৪ ডিসেম্বর রাতে ক্রিসমাস ইভ বা বড়দিনের সন্ধ্যা পালনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় আনুষ্ঠানিকভাবে দিনটি উদযাপন। যিশুর জন্মের আগের দিন (২৪ ডিসেম্বর) ক্রিসমাস ইভ পালন হয় বিশ্বজুড়ে। খ্রিস্টান ধর্ম মতে, যিশুর জন্ম হয়েছে ২৫ ডিসেম্বর দিবাগত মধ্যরাতে। ক্রিসমাস ইভে মধ্যরাতে যিশুর জন্মের সময়ের আগমুহূর্তে মানুষেরা গির্জায় জড়ো হন। এ সময়ের আগেই উপহার আদান-প্রদান করা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বড়দিন উদযাপনের কিছু ছবি এরইমধ্যে প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। দেশে দেশে বড়দিন উদযাপনের সে ছবিগুলো দেখে নেওয়া যাক-

ভ্যাটিকানে বড়দিনের আগেরদিন সন্ধ্যায় ক্রিসমাস ইভ সমাবেশে বক্তৃতা দেন পোপ। সেসময় আধুনিক ভোগবাদের আওতায় অতৃপ্ত লোভের সমালোচনা করেন তিনি। বিশ্ববাসীকে আহ্বান জানান, অধিকার করে না রেখে জিনিসপত্র নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি ও আদান-প্রদান করার।

গির্জায় উপস্থিত হয়ে মনযোগ দিয়ে ধর্মোপদেশ শুনছে এ মিসরীয় শিশু

তুরস্কের ইস্তানবুলে ক্রিসমাস ট্রি-এর পাশে দাঁড়িয়ে চুমু খাচ্ছে এ যুগল

বড়দিন উপলক্ষে তাইওয়ানের তাইপের এ গির্জায় ক্যাথলিক পোপ ফ্রান্সিসের একটি প্রতিকৃতি তৈরি করা হয়েছে। তার পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলছেন ভক্তরা।

কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের কিনশাশায় বড়দিন উদযাপন

সিডনির বন্ডি বিচে বড়দিন উদযাপন করছে পরিবারগুলো

মধ্য আমেরিকা থেকে যুক্তরাষ্ট্রগামী লাখো অভিবাসীদের দলেরই অংশ এ শিশুটি। মেক্সিকোর তিজুয়ানায় একটি আশ্রয়কেন্দ্রে বড়দিন উদযাপন করছে তারা।

ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলীয় শহর সোমাইনে প্রার্থনার আয়োজন করে ‘ইয়েলো ভেস্টস’ আন্দোলনকারীরা

চীনের বেইজিং-এ একটি গির্জায় প্রার্থনা করছেন এ নারী

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে সান্তা মারিয়া চার্চে এক ধর্মীয় সমাবেশে অংশ নেন খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীরা

শেয়ার করুন এখান থেকে