৩ জানুয়ারির আগে কাটছে না যুক্তরাষ্ট্রের অচলাবস্থা: ট্রাম্পের সহযোগী

বিদেশ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্র সরকারে তৈরি হওয়া আংশিক অচলাবস্থা (শাটডাউন) কংগ্রেস অধিবেশন শুরু না হওয়া পর্যন্ত চলার আভাস দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারপ্রাপ্ত চিফ অব স্টাফ মিক মুলভানি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম এবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ ইঙ্গিত দেন। উল্লেখ্য, ২৮ ডিসেম্বর বর্তমান কংগ্রেসের অধিবেশন হলেও নতুন মার্কিন কংগ্রেসের অধিবেশন শুরু হবে ৩ জানুয়ারি।

শাটডাউনের প্রতীকী ছবি
মার্কিন অর্থবছর শুরু হয় ১ অক্টোবর। তার আগেই বাজেট অনুমোদন করিয়ে নেওয়ার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থাকলেও সমঝোতার অভাবে কখনও কখনও মার্কিন কংগ্রেস তা পাস করাতে ব্যর্থ হয়। এমন অবস্থায় অস্থায়ী বাজেট বরাদ্দের মধ্য দিয়ে সরকার পরিচালনার তহবিল জোগান দেওয়া হয়। অস্থায়ী এই বাজেট বরাদ্দের ক্ষেত্রে দুই কক্ষের অনুমোদনসহ প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষরের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের তিন চতুর্থাংশ কার্যক্রম পরিচালনার অর্থ বরাদ্দ করা আছে। বাকি এক চতুর্থাংশের বাজেট ফুরিয়ে যাওয়ায় অচলাবস্থা ঠেকাতে শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) নতুন অস্থায়ী বাজেট বরাদ্দ ছিল অপরিহার্য। তবে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের বরাদ্দ প্রশ্নে এদিন দুই পক্ষের আইনপ্রণেতারা আলোচনায় বসলেও শেষ পর্যন্ত সমঝোতা না হওয়ায় শুক্রবার মধ্যরাত থেকে সৃষ্টি হয় ‘অচলাবস্থা’। বরাদ্দ কম পড়ে যাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ১৫টি কেন্দ্রীয় দফতরের মধ্যে ৯টিতে আংশিক শাটডাউন শুরু হয়।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে আভাস দেওয়া হয়েছিল ২৮ ডিসেম্বরের আগে শাটডাউন কাটছে না। কারণ, বড়দিন উপলক্ষে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চ কক্ষ সিনেট আগামী বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) পর্যন্ত মুলতুবী ঘোষণা করা হয়েছে। অন্তত সে পর্যন্ত অস্থায়ী বাজেট পাসের আর সুযোগ নেই। তবে এবিসি নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্পের সহযোগী মিক মুলভানি আভাস দিয়েছেন, এ অচলাবস্থা অন্তত ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

এবিসিকে তিনি বলেন, ‘২৮ তারিখের পরও এ শাটডাউন চলতে পারে। কংগ্রেসের নতুন অধিবেশন শুরু না হওয়া পর্যন্ত এ অবস্থা অব্যাহত থাকার প্রবল সম্ভাবনা আছে।’

বড়দিনের ছুটি শেষে আগামী বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) বর্তমান কংগ্রেসের অধিবেশন বসবে। তবে নতুন কংগ্রেস অধিবেশন শুরু হবে ৩ জানুয়ারি। নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচনে বিজয়ী কংগ্রেস সদস্যরা এদিন শপথ নেবেন। তখন কংগ্রেসের নিম্ন কক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকবে।

শেয়ার করুন এখান থেকে